কিসমিস জল পান করা আপনার স্বাস্থ্য পরিবর্তন করতে পারে? জেনে নিন কিছু অজানা কথা

by Chhanda Basak
Various health benefits of drinking raisin water

ডিজিটাল ডেস্ক : কিশমিশ, একটি ক্ষুদ্র খাবার, আকারে ছোট হতে পারে তবে প্রচুর স্বাস্থ্য উপকারিতা দিয়ে পরিপূর্ণ। মলিকুলার ডাইভারসিটি প্রিজারভেশন ইন্টারন্যাশনাল দ্বারা পরিচালিত একটি সমীক্ষা অনুসারে, কিসমিস উল্লেখযোগ্য খাদ্যতালিকা গত সুবিধা দেয়। গবেষণায় দেখা গেছে যে একজনের খাদ্যতালিকায় কিশমিশ অন্তর্ভুক্ত করা, বিশেষ করে খাওয়ার আগে, স্বাভাবিক ওজন সহ সুস্থ ব্যক্তিদের ক্ষুধা নিয়ন্ত্রণের জন্য উপকারী। সমীক্ষায় দেখা গেছে যে কিশমিশ খাওয়া তৃপ্তি-সম্পর্কিত হরমোনগুলিকে প্রভাবিত করে ক্ষুধা হ্রাস করতে পারে, সম্ভাব্য ভাবে খাবারের সময় সামগ্রিক শক্তি গ্রহণকে হ্রাস করতে পারে। এই প্রভাব স্বাস্থ্যকর শরীরের ওজন বজায় রাখতে অবদান রাখতে পারে।

কিশমিশ ভেজানো জল পানের স্বাস্থ্য উপকারিতা

স্বাস্থ্যের উন্নতির জন্য আপনার কিশমিশ ভেজানো জল চুমুক দেওয়ার কথা বিবেচনা করা উচিত:

1. প্রাকৃতিক শক্তি বুস্ট

কিশমিশ ভেজানো জল হল কার্বোহাইড্রেট এবং শর্করার একটি প্রাকৃতিক উৎস, যা অনেক এনার্জি ড্রিংকে পাওয়া প্রক্রিয়াজাত শর্করার ক্ষতিকারক প্রভাব ছাড়াই দ্রুত শক্তি বৃদ্ধি করে।

আরও পড়ুন : Benefits Of Chirata : কেন প্রতিদিন চিরাটা খাওয়া উচিত

2. পুষ্টিতে সমৃদ্ধ

কিসমিস অত্যাবশ্যকীয় ভিটামিন এবং খনিজ পদার্থ যেমন আয়রন, পটাসিয়াম, ক্যালসিয়াম এবং নির্দিষ্ট B ভিটামিনে ভরপুর। এগুলি ভিজিয়ে, আপনি সহজেই এই পুষ্টিগুলিকে জলে স্থানান্তর করতে পারেন, একটি স্বাস্থ্যকর অমৃত তৈরি করতে পারেন।

3. পাচক স্বাস্থ্য

কিশমিশ ভেজানো জলে রয়েছে ডায়েটারি ফাইবার, যা হজমে সাহায্য করে এবং কোষ্ঠকাঠিন্য প্রতিরোধ করে। নিয়মিত এই রসনা পান করলে পাচনতন্ত্র সুস্থ থাকে।

4. উন্নত হাইড্রেশন

হাইড্রেটেড থাকা সামগ্রিক স্বাস্থ্যের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। কিসমিস জল সমতল জলের একটি স্বাদযুক্ত বিকল্প প্রস্তাব করে, যা তরল গ্রহণের বৃদ্ধিকে উত্সাহিত করে।

5. প্রাকৃতিক ডিটক্স

কিশমিশ তাদের প্রাকৃতিক ডিটক্সিফাইং বৈশিষ্ট্যের জন্য পরিচিত। তারা শরীর থেকে বিষাক্ত পদার্থ বের করে দিতে সাহায্য করে, পরিষ্কার ত্বক এবং সামগ্রিক সুস্থতার প্রচার করে।

6. হার্টে জন্য ভালো

কিশমিশের যৌগগুলি কোলেস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে এবং রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে হার্টের স্বাস্থ্যের উন্নতির সাথে যুক্ত হয়েছে। নিয়মিত কিশমিশের জল পান করা স্বাস্থ্যকর কার্ডিওভাসকুলার সিস্টেমে অবদান রাখতে পারে।

আরও পড়ুন : মানব শরীরে ভিটামিন ডি কতটা গুরুত্বপূর্ণ, জানুন বিশেষজ্ঞদের কাছে

কিশমিশের জল পানের অপকারিতা

বেশি পরিমাণে কিশমিশের জল পান করলে ডায়রিয়া ও গ্যাসের সমস্যা হতে পারে

ডায়াবেটিস রোগীদের ভেবেচিন্তে জল কিসমিস খাওয়া উচিত। কারণ এটি টাইপ-২ ডায়াবেটিস রোগীদের সমস্যা বাড়িয়ে দিতে পারে।

কিছু মানুষের জন্য কিশমিশের জল উপকারী না হলে তাদের অ্যালার্জির সমস্যা হতে পারে।

কিভাবে কিশমিশ জল প্রস্তুত?

উপকরণ:

  • কিসমিস ১ কাপ
  • পানি ২ কাপ

পদ্ধতি:

  • কোনো অশুদ্ধি দূর করতে কিশমিশ ভালোভাবে ধুয়ে ফেলুন।
  • একটি কাচের পাত্রে ধুয়ে কিশমিশ রাখুন এবং ২ কাপ জল দিয়ে ঢেকে দিন।
  • কিশমিশ সারারাত বা কমপক্ষে ৮ ঘণ্টা ভিজিয়ে রাখুন।
  • সকালে জল ছেঁকে নিয়ে কিসমিসগুলো ফেলে দিন।
  • সর্বাধিক উপকারের জন্য খালি পেটে মিশ্রিত জল পান করুন।

আপনার সামগ্রিক স্বাস্থ্য উন্নত করতে কিসমিস জলে গ্রহণ করুন। আপনার দৈনন্দিন রুটিনে একটি ছোট পরিবর্তন আপনার সুস্থতার ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য উন্নতি ঘটাতে পারে।

Disclaimer: এই নিবন্ধে উল্লিখিত পদ্ধতি এবং পরামর্শগুলি অনুসরণ করার আগে, একজন ডাক্তার বা সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন।

NEWS24-BENGALI.COM

NEWS24-BENGALI.COM brings to provide the latest quality Bengali News(বাংলা খবর, Bangla News) on Crime, Politics, Sports, Business, Health, Tech, and more on Digital Platform.

Edtior's Picks

Latest Articles

Copyright © 2024 NEWS24-BENGALI.COM | All Rights Reserved.