দেশি ঘি না মাখন আপনার স্বাস্থ্যের জন্য কোনটি বেশি উপকারী, আসুন যেনে নেওয়া যাক

by Chhanda Basak

রান্নার জগতে, দেশি ঘি এবং মাখন শতাব্দী ধরে বিভিন্ন রান্নার প্রধান উপাদান। উভয়ই দুধ থেকে উদ্ভূত, তবুও তাদের স্বতন্ত্র বৈশিষ্ট্য এবং স্বাস্থ্য উপকারিতা রয়েছে। কোনটি স্বাস্থ্যকর এবং কেন তা নির্ধারণ করতে এই নিবন্ধটিতে আজ দেশী ঘি এবং মাখনের পুষ্টির প্রোফাইল, উপকারিতা এবং সম্ভাব্য ত্রুটিগুলি অন্বেষণ করবো।

দেশি ঘি

দেশি ঘি, যা ক্ল্যারিফাইড মাখন নামেও পরিচিত, ভারতীয় গৃহস্থালির একটি প্রধান জিনিস এবং জলের উপাদান এবং দুধের কঠিন পদার্থগুলিকে অপসারণ করতে মাখন সিদ্ধ করার মাধ্যমে তৈরি করা হয়। যা অবশিষ্ট থাকে তা হল একটি সমৃদ্ধ, সোনালি তরল যা ঘরের তাপমাত্রায় দৃঢ় হয়। দেশি ঘি শুধুমাত্র তার অনন্য স্বাদের জন্যই নয়, এর অসংখ্য স্বাস্থ্য উপকারিতার জন্যও সম্মানিত।

দেশি ঘি এর পুষ্টির প্রোফাইল

দেশি ঘি ভিটামিন A, D , E এবং K -এর মতো ফ্যাট-দ্রবণীয় ভিটামিন সমৃদ্ধ। এটি বুটাইরেটের একটি ভাল উৎস, একটি শর্ট-চেইন ফ্যাটি অ্যাসিড যা সমর্থন করে। ঘি প্রধানত স্যাচুরেটেড ফ্যাট দ্বারা গঠিত, যা একসময় অস্বাস্থ্যকর বলে মনে করা হত কিন্তু এখন বিভিন্ন শারীরিক ক্রিয়াকলাপের জন্য প্রয়োজনীয় হিসাবে স্বীকৃত।

দেশি ঘি এর উপকারিতা

ঘি অপরিহার্য চর্বি-দ্রবণীয় ভিটামিন এ, ডি, ই এবং কে সমৃদ্ধ, যা সামগ্রিক স্বাস্থ্যের উন্নতি করে। এতে বুটিরেট রয়েছে, যা একটি শর্ট-চেইন ফ্যাটি অ্যাসিড যা অন্ত্রের স্বাস্থ্যকে সমর্থন করে এবং প্রদাহ কমায়। ঘি ল্যাকটোজ-মুক্ত, এটি ল্যাকটোজ অসহিষ্ণুতাযুক্ত লোকদের জন্য উপযুক্ত করে তোলে। এর উচ্চ তাপমাত্রা সহ্য করার ক্ষমতা ক্ষতিকারক যৌগগুলিতে ভেঙে না পড়ে উচ্চ তাপমাত্রায় রান্নার জন্য আদর্শ করে তোলে। উপরন্তু, ঘি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়, ত্বকের স্বাস্থ্য বাড়ায় এবং হজমশক্তি বাড়ায়।

মাখন

মাখন ক্রিম মন্থন দ্বারা তৈরি করা হয়, ফলে জল, দুধের কঠিন পদার্থ এবং চর্বি সমন্বিত একটি আধা-কঠিন পণ্য তৈরি হয়। এটি সাধারণত বেকিং, রান্না এবং স্প্রেড হিসাবে ব্যবহৃত হয়। মাখনে একটি ক্রিমি টেক্সচার এবং একটি সামান্য মিষ্টি স্বাদ আছে।

মাখনের পুষ্টির প্রোফাইল

এছাড়াও মাখন চর্বি-দ্রবণীয় ভিটামিন যেমন এ, ডি, ই এবং কে সমৃদ্ধ। এতে স্যাচুরেটেড এবং অসম্পৃক্ত চর্বি উভয়ই রয়েছে, যার অনুপাত উচ্চতর স্যাচুরেটেড ফ্যাট। মাখনেও অল্প পরিমাণে ল্যাকটোজ এবং কেসিন থাকে, যা ল্যাকটোজ অসহিষ্ণুতা বা দুগ্ধজাত অ্যালার্জি যুক্ত লোকেদের জন্য সমস্যাযুক্ত হতে পারে।

আরও পড়ুন: পিরিয়ডের ব্যথা কমিয়ে নির্বিঘ্নে আরামদায়ক মাসিক চক্র উপভোগ করার কিছু ঘরোয়া উপায়

মাখনের উপকারিতা

মাখন সামগ্রিক স্বাস্থ্য এবং ইমুনিটি বাড়াতে সাহায্য করে। এতে কনজুগেটেড লিনোলিক অ্যাসিড (সিএলএ) সহ স্বাস্থ্যকর চর্বি রয়েছে, যা শরীরের চর্বি কমাতে এবং হার্টের স্বাস্থ্য উন্নত করতে সাহায্য করতে পারে। মাখন প্রয়োজনীয় পুষ্টির শোষণে সহায়তা করে এবং দ্রুত শক্তির উৎস প্রদান করে। মাখনে উপস্থিত ভিটামিন ডি ক্যালসিয়াম শোষণ বাড়িয়ে হাড়ের স্বাস্থ্যের উন্নতি করে। উপরন্তু, এর ক্রিমি টেক্সচার এবং সমৃদ্ধ গন্ধ খাবারের স্বাদ বাড়ায়, এটি রান্না এবং বেকিংয়ের একটি বহুমুখী উপাদান করে তোলে। সীমিত পরিমাণে খাওয়া হলে, মাখন একটি সুষম খাদ্যে পুষ্টি যোগ করতে পারে।

স্বাস্থ্য প্রভাব তুলনা

দেশি ঘি এবং মাখনের মধ্যে নির্বাচন করার ক্ষেত্রে, সিদ্ধান্তটি মূলত ব্যক্তিগত স্বাস্থ্য লক্ষ্য এবং খাদ্যতালিকাগত পছন্দগুলির উপর নির্ভর করে।

  1. হার্টের স্বাস্থ্য: ঘি এবং মাখন উভয়ই স্যাচুরেটেড ফ্যাট সমৃদ্ধ, যা এলডিএল কোলেস্টেরলের মাত্রা বাড়াতে পারে। যাইহোক, ঘন ঘন ঘি খাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয় কারণ এটি ট্রান্স ফ্যাট মুক্ত এবং এতে বুটিরেটের মতো উপকারী যৌগ রয়েছে। মাখন, বিশেষ করে যদি ঘাস খাওয়ানো গরু থেকে প্রাপ্ত হয়, এতে কনজুগেটেড লিনোলিক অ্যাসিড (সিএলএ) থাকে, যা স্বাস্থ্য উপকারিতার সাথে যুক্ত।
  2. হজম ক্ষমতা: মাখনের তুলনায় ঘি হজম করা সহজ কারণ এটি ল্যাকটোজ এবং কেসিন মুক্ত। এটি ল্যাকটোজ অসহিষ্ণুতা বা দুগ্ধ সংবেদনশীলতার জন্য ঘি একটি ভাল পছন্দ করে তোলে।
  3. রান্নার স্থিতিশীলতা: ঘি এর উচ্চতর ধোঁয়া বিন্দু(ধোঁয়া হওয়ার তাপমাত্রা) এটিকে উচ্চ তাপমাত্রায় রান্নার জন্য আরও স্থিতিশীল করে তোলে। মাখন সহজেই পোড়াতে পারে, অতিরিক্ত গরম হলে ক্ষতিকারক ফ্রি র‌্যাডিক্যাল তৈরি করে।
  4. সাংস্কৃতিক এবং খাদ্যতালিকাগত পছন্দ: আয়ুর্বেদিক অনুশীলনে, ঘি প্রায়শই এর ঔষধি গুণাবলীর জন্য পছন্দ করা হয়। এটি পুষ্টির শোষণ বাড়াতে এবং সামগ্রিক স্বাস্থ্যের প্রচার করতে ব্যবহৃত হয়। মাখন সাধারণত পশ্চিমা রন্ধন-শৈলীতে বেকড পণ্যে এর স্বাদ এবং টেক্সচারের জন্য ব্যবহৃত হয়।

আরও পড়ুন: Chocolate and tooth enamel erosion: স্বাস্থ্যকর চকোলেট খাওয়ার সুবিধা এবং ঝুঁকি

সম্ভাব্য ত্রুটি

ঘি এবং মাখন উভয়ের উচ্চ ক্যালরি সামগ্রীর কারণে এগুলি অল্প পরিমাণে খাওয়া উচিত। অত্যধিক সেবন ওজন বৃদ্ধি এবং হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়াতে পারে। হাইপারলিপিডেমিয়ার মতো নির্দিষ্ট স্বাস্থ্যের সমস্যাযুক্ত ব্যক্তিদের খাদ্যতালিকাগত পরিবর্তন করার আগে একজন স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারীর সাথে পরামর্শ করা উচিত।

দেশি ঘি এবং মাখন উভয়েরই নিজস্ব অনন্য সুবিধা এবং সম্ভাব্য অসুবিধা রয়েছে। ঘি ল্যাকটোজ মুক্ত, উচ্চ ধূমপান বিন্দু এবং অন্ত্র-বান্ধব বাটিরেট ধারণকারী সুবিধা প্রদান করে। মাখন CLA এবং প্রয়োজনীয় ভিটামিন সরবরাহ করে। উভয়ের মধ্যে স্বাস্থ্যকর বিকল্পটি ব্যক্তিগত স্বাস্থ্যের চাহিদা এবং রন্ধনসম্পর্কীয় পছন্দগুলির উপর নির্ভর করে।

NEWS24-BENGALI.COM

NEWS24-BENGALI.COM brings to provide the latest quality Bengali News(বাংলা খবর, Bangla News) on Crime, Politics, Sports, Business, Health, Tech, and more on Digital Platform.

Edtior's Picks

Latest Articles

Copyright © 2024 NEWS24-BENGALI.COM | All Rights Reserved.